শনিবার, ২২ Jun ২০২৪, ০৫:৫৪ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ
অনলাইন ভিত্তিক গণমাধ্যম “৭১সংবাদ২৪.কম” এ প্রতিনিধি আহ্বান করা হয়েছে। আগ্রহীগণ জিবনবৃত্তান্ত পাঠাতে 71sangbad24.com@gmail.com -এ মেইল করুন
সংবাদ শিরোনামঃ
নড়াইলে কনস্টেবল ও নায়েকদের ১৭তম দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের উদ্বোধন রায়পুরে অপহৃত কিশোরী উদ্ধার, গ্রেফতার ২ রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের আয়োজনে ঈদ ক্রিকেট ফেস্টিভ্যাল সম্পন্ন রাণীশংকৈলে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুর্ধ-১৭’র প্রস্তুতি সভা পশুর হাটে অতিরিক্ত টোল আদায় অন্যায়ভাবে দিনমজুরকে কারাদন্ড- এসিল্যান্ড বদলী পাবনায় ট্রেনে কাটা পড়ে এক বৃদ্ধার মৃত্যু পীরগঞ্জে বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবে সাধারণ সভা সম্পন্ন র‌্যাব-১১, সিপিসি-২’র অভিযানে গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক ধুনটে খালুর বাড়িতে বেড়াতে এসে নিহত-১ নড়াইলে যুদ্ধাপরাধ মামলায় আত্মগোপনে থাকা রুহুল কুদ্দুস আটক ধুনটে নিমগাছী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নির্বাচনী জনসভা ফুলবাড়ীতে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন তারাগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জের ঈদ শুভেচ্ছা তারাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুবেল রানার ঈদ শুভেচ্ছা ডিমলায় অসহায় রোগীদের চিকিৎসা সহায়তার চেক বিতরণ জনবিরোধী বাজেট ঈদের আনন্দ ধ্বংস করেছে- মোমিন মেহেদী নীলফামারীর জলঢাকায় এক মাদক ব্যবসায়ি আটক রংপুরের পীরগঞ্জ মহিলা কলেজে “মেহেদী উৎসব” নড়াইলে দুস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ নড়াইলের হাওয়াইখালি ব্রিজে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় কিশোর নিহত

কিশোরগঞ্জে হারিয়ে যাচ্ছে মহৌঔষধি গাছ আকন্দ

আনোয়ার হোসেন- কিশোরগঞ্জ(নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ
প্রাচীন ভেষজ চিকিৎসালয়ের মহৌঔষধি গুণসমৃদ্ধ উদ্ভিদ আকন্দ।এর পাতা গ্রামাঞ্চলের মানুষের প্রাথমিক সেবাদানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করত পাশাপাশি পাতা, ফুল, মূল, রসালো আটা, চূর্ণ ব্যবহার করে ঘরোয়া, কবিরাজি, আয়ুর্বেদিক, ইউনানী, হোমিও চিকিৎসা ও ওষুধ তৈরিতে ভূমিকা ছিল অপরিসীম। সভ্যতার উষালগ্ন থেকে মানুষের বহুবিধ রোগ মুক্তি বা নিরাময়ে মন্ত্র শক্তির মতো কাজ করতো।

কিন্তু কালের পরিক্রমায় ভেষজ গুরুত্বের অভাবে গ্রাম বাংলার প্রকৃতি থেকে হারিয়ে যাচ্ছে আকন্দ। এক সময় নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে আকন্দ গাছ দেখা যেত মেঠো পথের ধারে, সৌখিন প্রিয় মানুষের উঠোন বাড়ির বাউন্ডারির সৌন্দর্য বিন্যাসে। সবজি ক্ষেতে বেড়ায়। কবর-শ্মশান স্থানে।প্রাকৃতির ইশারায় জন্ম নিয়ে বেড়ে উঠত অনাদরে। আর গ্রামীণ লোকজন তাদের লোকায়েত জ্ঞানে এ গাছের পাতা ভাঙা-মোচকা, হাড়-জোড়, বাত ব্যাথা, হাঁপানি শ্বাসকষ্ট, একশিরিয়া রোগের চিকিৎসা করত। নতুন প্রজন্ম এ গাছ না চেনা বা বিশদ গুনাগুন সম্পর্কে না জানা বা আস্থা না থাকায় মহামূল্যবান সনাতনী চিকিৎসা ব্যবস্থা হারিয়ে যাচ্ছে।

ঝোপঝাড়,আগাছা মনে করে এর শেকড় উপড়ে ফেলছে। উঃ দুরাকুটি পশ্চিমপাড়া গ্রামের প্রবীণ ব্যক্তি কেচুয়া মামুদ জানান- একসময় তিনিও এবং বয়স্করা ভাঙা-মোচকা, হাড় জোড়, বাত ব্যাথায়, হাত ভাঙ্গা মহাশংকর তেল, কেরোসিন, সরিষা তেল সহনীয় গরম করে মালিশের পর আকন্দ পাতা আগুনে হালকা স্যাক দিয়ে প্রলেপ দিত।

তাতে দ্রুত ব্যথা উপশম হত।এ চিকিৎসা ব্যবস্থা ছিল খরচ সাশ্রয়ী ও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া মুক্ত এবাং স্বাস্থ্যসম্মত। এখনকার চিকিৎসা ব্যবস্থা আধুনিক হয়েছে ঠিকই। কিন্তু এর চিকিৎসার ব্যয়ভার মেটাতে গিয়ে মানুষ হিমশিম খাচ্ছে। পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার ঝুঁকিও অনেক।

তাই এ ভেষজ চিকিৎসা ব্যবস্থা জিয়ে রাখা উচিত।স্থানীয় কবিরাজ সূধীর চন্দ্র জানান- হাঁপানি, শ্বাসকষ্টজনিত, ব্রণ, সর্দি, খোস-পাচড়া ও একজিমাসহ এরকম অনেক রোগে আকন্দ পাতা, ফুল, মূল চূর্ণ ব্যবহার করে চিকিৎসা করা হতো। আধুনিক চিকিৎসার প্রভাবে কদর কমছে আয়ুর্বেদ, কবিরাজি পেশার।

এখন বিলুপ্ত প্রায় আকন্দ গাছ। টুকিটাকি চিকিৎসায় খুঁজে পাওয়া যায় না।উদ্ভিদ সংরক্ষণ অফিসার আজিজার রহমান জানান- আকন্দের বৈজ্ঞানিক নাম-ক্যালেট্রপিস গোত্রের নাম প্রোসিরা এসক্লিপিয়েডিসি। পাতা রোমস ধরণের, পাতা ও ডাল হতে দুধের মত সাদা রংয়ের রসালো আটা বের হয়। পাতা ব্যাথা নাশক হিসেবে অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা রাখে। যুগের পর যুগ এই গাছ নানাবিধ রোগের মহৌষধ হিসেবে কাজ করলেও সংরক্ষণের অভাবে হারিয়ে যাচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

অনলাইন ভিত্তিক 71sangbad24.com গণমাধ্যমটি

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশনে নিবন্ধিত, (আই ডি নং-364)

বাংলাদেশ তথ্য মন্ত্রনালয়ে জাতীয় নিবন্ধন প্রক্রিয়াধীন।

আগ্রহীগণ সিভি পাঠাতে -মেইল করুনঃ info71sangbad24.com@gmail.com

©2019 copy right. All rights reserved 71sangbad24.com Desing & Developed By Hostitbd.Com