শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৫:৪৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ
অনলাইন ভিত্তিক গণমাধ্যম “৭১সংবাদ২৪.কম” এ প্রতিনিধি আহ্বান করা হয়েছে। আগ্রহীগণ জিবনবৃত্তান্ত পাঠাতে 71sangbad24.com@gmail.com -এ মেইল করুন
সংবাদ শিরোনামঃ
গাজীপুরের টঙ্গীতে তালা ভেঙ্গে দুর্ধর্ষ চুরি কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী সম্রাট আবির র‌্যাবে হাতে গ্রেফতার ডোমারের ফার্মহাট নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি নির্বাচিত নড়াইল ডিবি পুলিশের অভিযানে গাঁজাসহ গ্রেফতার ১ নড়াইলে ইয়াবা ও গাঁজাসহ একজন গ্রেফতার জলঢাকায় লটারির মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন জলঢাকায় নবনির্বাচিত মেয়রের দ্বায়িত্ব গ্রহন জলঢাকায় কৈমারী ইউনিয়ন পরিষদ ও ভাওয়াইয়া একাডেমির কার্যক্রম পরিদর্শন বেঞ্চ এবং বারের সুসম্পর্কের মধ্য দিয়ে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হতে পারে- প্রধান বিচারপতি নীলফামারীতে অগ্নিকাণ্ডে ৫টি দোকান ভষ্মীভূত ধুনটে পৌর জাতীয় আদিবাসীর বিশেষ বর্ধিত সভা বকশীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন নজরুল ইসলাম সাত্তার নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বে-সরকারি ভাবে ফল প্রকাশ পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বে-সরকারি ভাবে ফল প্রকাশ মিঠাপুকুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বে-সরকারি ভাবে ফল প্রকাশ নড়াইল সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে ব্রিফিং প্যারেড অনুষ্ঠিত পীরগঞ্জের উপজেলা নির্বাচনের পরিবেশ পরিস্থিতি নড়াইলে হত্যা মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার ফুলবাড়ীর আলাদীপুর ইউপিতে নিরাপদ সবজি উৎপাদন যুক্ত প্রদর্শনী মাঠ দিবস

নড়াইলে ছাগল চুরির অভিযোগে দু’ভাইকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

উজ্জ্বল রায়- নড়াইল জেলা প্রতিনিধিঃ
নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় ছাগল চুরির অপবাদে দু’ভাইকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

রবিবার ১৫ই মে সকালে লোহাগড়া উপজেলার কোটাকোল ইউনিয়নের মাটিয়াডাঙ্গা গ্রামে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।
নির্যাতিত যুবকরা হলেন- মাটিয়াডাঙ্গা গ্রামের রশিদ শেখের ছেলে ফরিদ শেখ(৩০) ও একই গ্রামের রউফ শেখের ছেলে তরিক শেখ(২৩)। তারা সম্পর্কে পরস্পর চাচাতো ভাই। বর্তমানে তারা লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

প্রতক্ষ্যদর্শী ও আহতদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে- শনিবার ১৪ই মে রাতে মাটিয়াডাঙ্গা গ্রামের হাই মুন্সির একটি ছাগল হারিয়ে যায়। ওই ছাগল চুরির অভিযোগে ফরিদ ও তরিককে রোববার ১৫ই মে সকাল ৮টার দিকে বাড়ি থেকে ধরে আনা হয়। পরে নান্নু শেখের দোকানের পাশে দুটি গাছে দুইজনকে আলাদাভাবে বেঁধে চালানো হয় নির্যাতন।

এ সময় কোটাকোল ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আবু কালাম মুন্সির নেতৃত্বে নান্নু শেখ, আজমল মুন্সি, ইজাজুল মুন্সি ও রমজান মুন্সিসহ ৪/৫ জন তাদের বাঁশের লাঠি ও মুগুর দিয়ে বেধড়ক পেটায়। এছাড়া বিড়ির আগুন দিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছ্যাঁকা দেওয়া হয় বলেও আহতদের অভিযোগ।

প্রায় ঘণ্টা দুয়েক ধরে চলা ওই নির্যাতনের মধ্যে নান্নু মুন্সির বাড়ি থেকে খবর আসে ছাগল বাড়ি ফিরে এসেছে। তখন ফরিদ ও তরিককে ছেড়ে দিয়ে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

কোটাকোল ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আবু কালাম মুন্সি মারধরের কথা স্বীকার করে বলেন- ‘আমি ঘটনাস্থলে ছিলাম, তবে আমি তাদের মারিনি। সন্দেহ থেকে তাদের মারা হয়েছে।

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ আবু হেনা মিলন মারধরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন- ‘আইন কেউ নিজের হাতে তুলে নিতে পারে না। তাদের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে’।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

১৬

অনলাইন ভিত্তিক 71sangbad24.com গণমাধ্যমটি

বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশনে নিবন্ধিত, (আই ডি নং-364)

বাংলাদেশ তথ্য মন্ত্রনালয়ে জাতীয় নিবন্ধন প্রক্রিয়াধীন।

আগ্রহীগণ সিভি পাঠাতে -মেইল করুনঃ info71sangbad24.com@gmail.com

©2019 copy right. All rights reserved 71sangbad24.com Desing & Developed By Hostitbd.Com