বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:২৭ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদঃ
করোনা সংক্রমণ রোধে আতঙ্ক নয়, গণ সচেতনতাই উত্তম...নিরাপদ দুরত্বে পথ চলুন, খাবারের আগে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিন.. নাক, মুখে হাত দেওয়া থেকে বিরত থাকুন...সবচেয়ে ভালো বাড়ীতেই থাকুন... ধন্যবাদ সবাইকে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পরিচিত মুখগুলোকে একত্রিত করেছে ওয়ান ওয়ে স্কুল

জুয়েল রানা- কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধিঃ
গত ১৪ই জানুয়ারি তেজগাঁও কলেজ অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশের প্রথম ন্যাশনাল টেক কার্নিভাল ২০২৩ইং আয়োজনে করে ওয়ান ওয়ে স্কুল। টেক বিষয়ক তথ্য জানতে পেরে খুব উচ্ছাসিত সারা দেশ থেকে আসা শিক্ষার্থীরা।

প্রযুক্তির বিবর্তনে অর্থনৈতিক উন্নয়নের একটি বড় চাবিকাঠি হলো ফ্রিল্যান্সিং ও টেকনলজির ব্যবহার। উন্নত রাষ্ট্র গুলোর পর্যালোচনা করলে আমরা সহজেই অনুধাবন করতে পারি। আর এই ফ্রিল্যান্সার এবং টেকনোলজির উদ্যোক্তা তৈরির জন্য দরকার সমষ্টিগত কর্ম পরিকল্পনা। সরকারের পাশাপাশি আমাদের ওয়ান ওয়ে স্কুলের দূরদর্শী চিন্তার কারণে আজকে দেশে প্রথমবারের

মতো জাতীয় টেক কার্নিভাল-২৩ আয়োজিত হচ্ছে। টেক কার্নিভাল এর মূল উদ্দেশ্য বর্তমান বিশ্বে টেকনোলজির প্রয়োজনীয়তা কতটুকু তা তুলে ধরা এবং এর সঠিক ব্যবহার সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া।

কার্নিভালে স্পীকার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সোহাগ মিয়া, ডন সাম ডেনি, হাসান মাহমুদ , প্রীতো রেজা, নাফিস সেলিম, অনিক মাহমুদ এছাড়া আরও সফল ফ্রিল্যান্সার এবং টেকনোলজি উদ্যোক্তাগণ।

এসময় স্কুল অফ ইঞ্জিনিয়ার এর কো-ফাউন্ডার হাসান মাহমুদ বলেন- স্মার্ট বাংলাদেশ তৈরিতে পাঁচটি কাজ করতে হবে- ১। নিজেকে স্মার্ট হতে হবে, ২। স্মার্ট গভার্নমেন্ট, ৩। স্মার্ট সোসাইটি, ৪। স্মার্ট প্রযুক্তি ও ৫। প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার।

অন্যদিকে সফল ফ্রিল্যান্সার অনিক মাহমুদ তরুণদের ভালো কাজের উৎসাহিত করর জন্য বলেন- “১’শ বছর জীবিত থাকতে চাইলে ১’শ বছর বেঁচে থাকার দরকার নেই”।

কার্নিভালে তরুণ অংশগ্রহণকারীদের মেধা যাচাই এর জন্য তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কিত কুইজের আয়োজন করা হয়।

এখানে দু’টি ক্যাটাগরিতে প্রথম ৬ জন বিজয়ীকে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট এবং স্কিলড করার লক্ষ্যে ২০ হাজার টাকার সমমূল্যের কোর্স দেওয়া হয় সম্পূর্ণ ফ্রি।

কার্নিভালে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে নির্বাচিত সেরা সদস্যদের সার্টিফিকেট ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। ক্যাটাগরি সমূহঃ * দ্যা বেস্ট মেন্টর অ্যাওয়ার্ড * দ্যা বেস্ট লিডার অ্যাওয়ার্ড * দ্যা বেস্ট লিডিং অ্যাওয়ার্ড * দ্যা বেস্ট ভলেন্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড।

কার্নিভালে তরুণ অংশগ্রহণকারীদেরকে উদ্দেশ্য করে ওয়ান ওয়ে স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা সিফাতুর রহমান বলেছেন- “আমাদের তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারে সঠিকভাবে ভূমিকা পালন করতে হবে নতুবা আমরা আমাদের ক্যারিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবং কর্মসংস্থান হারিয়ে ফেলবো”।

পরবর্তী বছরগুলোতেও আমাদের এমন ইভেন্ট অব্যাহত থাকবে। সাথে বড় পরিসরে পোগ্রামিং কন্টেস্ট থেকে শুরু করে সকল ধরনের টেকনোলজি বিষয়ক কন্টেস্ট করানো হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

আর্কাইভ

SatSunMonTueWedThuFri
    123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728   
       
  12345
       
    123
       
   1234
262728    
       
293031    
       
1234567
293031    
       
©  2019 copy right. All rights reserved © 71sangbad24.com ltd.
Design & Developed BY Hostitbd.Com